মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

১। মেডিকোলিগ্যাল সনদ প্রদান: আদালত / থানা কর্ৃক চাহিদার প্রেক্ষিতে বোডের মাধ্যমে মেডিকেল সনদ 

     প্রদান করা হয়ে থাকে।

২। চিকিৎসা সেবা প্রদান: জেলা সদর হাসপাতাল, ৩ টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৯৫ কমিউনিটি ক্লিনিক      

    ৮৬৮টি কেন্দ্রের মাধ্যমে প্রতিকার ও প্রতিরোধমুলক সেবা প্রদান করা হয়্।

৩। টিকা প্রাদান: মা ও শিশুদের ৮ টি রোগের বিরুদ্ধে ওয়ার্ড পর্াযে  স্বাস্থ কর্ীদের মাধ্যমে টিকা প্রদান করা হয়।

মাগুরা জেলার স্বাস্থ্য বিভাগের বর্তমান সরকারের সময়ে উন্নয়ন মূলক কাজ :

১।  মাগুরা ৫০শয্যা হইতে ১০০ উন্নিতকরণ শীর্ষক প্রকল্পের ৫৯ জন কর্মকর্তা কর্মচারীর ৩৬ জন বাজস্ব খাতে

     স্থানন্তিরিত। বাকী ২৩ জন রাজস্বখাতে স্থানন্ত্রের কাজ শেষ পর্যায়ে।

২।  ১০০ শয্যা বিশিষ্ট মাগুরা সদর হাসপাতাল বিল্ডিং এর ২৫০ শয্যা উন্নিতকরণের টেন্ডার কার্যক্রম শেষ । বাকী

      কাজ প্রক্রিয়াধীন।

৩।  মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ৫০ শয্যায় উন্নিতকরণ করা হইয়াছে।

৪।  মাগুরা জেলায় মহম্মদপুর উপজেলায় ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালকে ৫০ শয্যায় উন্নিতকরনের অবকাঠামো

      নির্মানের কাজ ৯০ ভাগ সমাপ্ত ।

৫।  মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ৫০ শয্যায় উন্নিতকরনের নির্মানকাজ

      প্রক্রিয়াধীন।

৬।  মাগুরা জেলার ৪ টি উপজেলায় মোট ৯৫ টি কমিউনি টি ক্লিনিকের কার্যক্রম চলমান  এবং স্বাস্থ্য সেবা গ্রামের

      সাধারণ জনগন সূফল পাচ্ছে।

৭।  মাগুরা জেলায় মোট ৯৮ জন কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) নিয়োগ দেয়ো হয়েছে।

৮।  ৫৫ জন স্বাস্থ্য সহকারী  ওয়ার্ড পর্যায়ে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে যাহারা সাধারন জনগনের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্য

      সেবা পেৌছে দিচ্ছে।

৯।  মাগুরা জেলায় শ্রীপুর সদরে এবং শালিখা উপজেলার আড়পাড়ায় ১০ শয্যা বিশিষ্ট মেটারন্যাল এন্ড চাইল্ড

      হেলথ কেয়ার সেন্টার নির্মানের প্রশাসনিক অনুমোদনপ্রাপ্ত এবং ভবন নির্মান কাজ প্রক্রিয়াধীন।

১০।  মাগুরা জেলার সদর উপজেলার আলোকদিয়া এবং বেরইল পলিতায় ২০ শয্যা  বিশিষ্ট হাসপাতাল প্রশাসনিক

      অনুমোদন প্রাপ্ত। সদর উপজেলার আলোকদিয়ায় ৩ একর জমি সিভিল সার্জন মাগুরার অনুকুলে অধিগ্রহনকৃত 

১১।  মাগুরা জেলায় মহম্মদপুর জেলায় বিনোদপুরে ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল নির্মানের প্রশাসনিক অনুমোদন

       প্রাপ্ত।


Share with :

Facebook Twitter